Leave a comment

নকশাল আন্দোলন

1) ভারতের মাওবাদী অধ্যুষিত অঞ্চলসমূহ
নকশাল আন্দোলন একটি কমিউনিস্ট আন্দোলনের নাম। বিংশ শতাব্দীর সপ্তম দশকে পশ্চিমবঙ্গের নকশালবাড়ি থেকে শুরু হয়ে এটি ধীরে ধীরে ছত্রিশগড় (তদানীন্তন মধ্যপ্রদেশ) এবং অন্ধ প্রদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়ে। ক্রমে এটি একটি সন্ত্রাসবাদী আন্দোলনে রূপ নিয়েছিল। LINK

2) সিপিআই (মাওবাদী)  ও  নকশালপন্থী ===>> 

সিপিআই (মাওবাদী) এবং আরও কিছু নকশালপন্থী দলকে ভারত সরকার সন্ত্রাসবাদী সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে। ২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে ভারত সরকার নকশাল নির্মূলে তাদের পরিকল্পনা ঘোষণা করে। এতে উগ্রবামপন্থী আক্রান্ত অঞ্চল ছত্তিশগড়, উড়িষ্যা, অন্ধ্রপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, ঝাড়খন্ড, বিহার, উত্তরপ্রদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গে, তাদের পলায়নের সব রাস্তা বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

3) মাওবাদের ইতিহাসের দিকে তাকালে দেখা যায় যে, গত শতকের ’৬০ দশকের মধ্যভাগে ‘স্টালিন প্রশ্ন’ কে কেন্দ্র করে সারা দুনিয়ার কমিউনিস্টদের মধ্যে তীব্র এক বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ে। এই বিতর্ক কমিউনিস্ট আন্দোলনে ‘মহাবিতর্ক’ [great debate] নামে পরিচিত। এই বিতর্কের নেতৃত্ব দেয় একদিকে নিকিতা ক্রুশ্চেভের নেতৃত্বে সোভিয়েত ইউনিয়নের কমিউনিস্ট পার্টি এবং অন্যদিকে মাও সেতুংয়ের নেতৃত্বে চীনের কমিউনিস্ট পার্টি। অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্যি যে, স্টালিনের নিজের দল সোভিয়েত ইউনিয়নের কমিউনিস্ট পার্টি স্টালিনের বিরোধিতা করে। অন্যদিকে চীনের কমিউনিস্ট পার্টি স্টালিনকে ঊর্ধ্বে তুলে ধরার যৌক্তিকতা সারা বিশ্বের কমিউনিস্টদের সামনে হাজির করে। এই বিতর্ককে কেন্দ্র করে চীনের পার্টির মতামত এবং মাও সেতুংয়ের নিজস্ব তত্ত্ব সারা দুনিয়ার কমিউনিস্টদের মধ্যে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়তে থাকে। যেহেতু মাও সেতুংয়ে চীনের মতো একটি অনুন্নত দেশে বিপ্লবের নেতৃত্ব দিয়েছিলেন, খুব স্বাভাবিকভাবেই তাকে মার্কস-এঙ্গেল্স-লেনিন-স্টালিনের তত্ত্বের ওপর নির্ভর করেই নতুন তত্ত্ব দাঁড় করাতে হয়েছিল। তার এই নতুন তত্ত্ব ‘মাও সেতুংয়ে চিন্তাধারায়, মহাবিতর্ক চলাকালীন সময়ে অনুন্নত দেশে সংগ্রামরত কমিউনিস্টদের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করে। চারু মজুমদার ভারতের বুকে সর্বপ্রথম এই তত্ত্বকে ধারণ করেন এবং প্রয়োগে নিয়ে যান।  – –  LINK

4) ছত্তিশগড়ে মাওবাদীদের হামলায় ১৩ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন অন্তত ১২ জন। গতকাল সোমবার এ ঘটনা ঘটে। – – –  ভারতের মধ্য ও পূর্বাঞ্চলে মাওবাদীদের তৎপরতা বেশি। ওইসব অঞ্চলের গ্রাম ও জঙ্গলে আস্তানা গেড়ে তৎপরতা চালায় নিষিদ্ধ ঘোষিত গেরিলা গোষ্ঠীটি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এ হামলার নিন্দা জানিয়েছেন। গত রোববারই ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিং ঘোষণা দিয়েছিলেন শিগগিরই রাজ্য মাওবাদী মুক্ত হবে। উচ্চ পর্যায়ের নিরাপত্তাবিষয়ক জাতীয় একটি কমিটির সঙ্গে আলোচনাকালে তিনি বলেন, উত্তর ছত্তিশগড় থেকে মাওবাদীরা নির্মূল হয়ে গেছে। এখন তারা বাস্তার ও রাজনন্দনগাঁওয়ে সীমাবদ্ধ আছে। (প্রকাশ : ০২ ডিসেম্বর, ২০১৪) LINK

5) নকশালরা ভারতের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য পাকিস্তান, কাশ্মির বা উত্তর-পূর্ব রাজ্য সমূহের চেয়ে বেশি ভয়ংকর হিসেবে দেখা দিয়েছে।

6) নকশাল আন্দোলন নিয়ে প্রচুর সাহিত্য রচিত হয়েছে। অরুন্ধতী রায় বুকার পুরস্কার জয়ী “গড অব স্মল থিংস্” উপন্যাসে একটি চরিত্র নকশাল আন্দোলনে যোগ দেয়। মহাশ্বেতা দেবী তার ‘’’হাজার চুরাশির মা’’’ উপন্যাসে নকশাল আন্দোলন নিয়ে লিখেছেন। ১৯৯৮ সালে এ উপন্যাসের উপর ভিত্তিকরে একটি চলচ্চিত্র নির্মিত হয়, নাম ছিল “হাজার চুরাশি কি মা”। সমরেশ মজুমদার এবং সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় রচিত বেশ কিছু উপন্যাসে নকশাল আন্দোলনের কথা রয়েছে। LINK

7)  #নকশাল – – –
১৯৭২ সারে চারু মজুমদার পুলিশের হাতে ধরা পড়েন এবং আলীপুর জেলে নিহত হন। কানু স্যানাল ২০১০ সালের ২৩শে মার্চ পশ্চিমবঙ্গের দার্জিলিং জেলার নকশালবাড়ী থানার হাতিঘিষা গ্রামের নিজ বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। শারীরিক অসুস্থতা সইতে না পেরে তিনি আত্মহত্যার পথ বেছে নেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর।

8) #নকশালরা অল্পসময়ের মধ্যে ভারতের শিক্ষিত সমাজের ব্যপক সমর্থন পেয়েছিল। দিল্লীর “সেন্ট স্টিফেন্স কলেজ” তাদের বিচরণ ক্ষেত্র হয়ে ওঠে।
এরপর সরকার নকশালদের কে শক্ত হাতে দমনের সিদ্ধান্ত নেয়। তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্ধার্থ শঙ্কর রায় নকশালদের উপর প্রতিআক্রমণের নির্দেশ দেন। পুলিশকে কিছু মানবতা বিরোধী ক্ষমতা দেওয়া হয়। এর মধ্যে ছিল নির্বিচারে হত্যা এবং অকারণে যে কাউকে বন্দী করার ক্ষমতা।

9) #নকশাল আন্দোলন কলকাতার ছাত্র সংগঠনগুলোর ব্যপক সমর্থন পেয়েছিল।[৮] ছাত্রদের একটি বড় অংশ লেখাপড়া ছেড়ে দিয়ে বিপ্লবী কর্মকান্ডে অংশ নিয়েছিল। চারু মজুমদার বলেছিলেন বিপ্লবী কার্যক্রম শুধুমাত্র গ্রামাঞ্চলে চালিয়ে গেলেই চলবে না, বরং একে সর্বত্র ছড়িয়ে দিতে হবে। তিনি নকশালদের শ্রেণীশত্রু খতম করার নির্দেশ দেন। এ শ্রেণীশত্রুদের মধ্যে যেমন ছিল ভূস্বামী তেমনি ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, পুলিশ অফিসার, রাজনীতিবিদ এবং আরও অনেকে।

10) #নকশাল #মাওবাদ – – – –
The Naxalites control territory throughout Bihar, Jharkhand and Andhra Pradesh states and claim to be supported by the poorest of the rural population, especially the Adivasis.
===>> http://en.wikipedia.org/wiki/Naxalite–Maoist_insurgency

11) In 2007, it was estimated that Naxalites were active across “half of the India’s 28 states” who account for about 40 percent of India’s geographical area an area known as the “Red Corridor”, where, according to estimates, they controlled 92,000 square kilometers.

12) In 2011, Indian police accused the Chinese government of providing sanctuary to the movement’s leaders, and accused Pakistani ISI of providing financial support.

13) According to the BBC, more than 6,000 people have died during the rebels’ 20-year fight between 1990 and 2010.

14) The Naxalite–Maoist insurgency is an ongoing conflict between Maoist groups, known as Naxalites or Naxals, and the Indian government.

15) The armed wing of the Naxalite–Maoists is called the PLGA (Peoples Liberation Guerrilla Army) and is estimated to have between 6,500 and 9,500 cadres, mostly armed with small arms

16) The term Naxalites comes from Naxalbari, a small village in West Bengal, where a section of the Communist Party of India (Marxist) (CPI-M) led by Charu Mazumdar, Kanu Sanyal, and Jangal Santhal initiated a violent uprising in 1967.

17) ভারতের নকশাল / মাওবাদ মতাদর্শ প্রভাবিত অঞ্চল ====>>
Karnataka, Chhattisgarh, Odisha, Andhra Pradesh, Maharashtra, Jharkhand, Bihar, Uttar Pradesh, and West Bengal

18) In 2009, Naxalites were active across approximately 180 districts in ten states of India

19) Communist terrorist groups (Naxals) are by far the most frequent perpetrators and the main cause of deaths in India. Maoist communist groups claimed responsibility for 192 deaths in 2013, which was nearly half of all deaths from terrorism in India

20) During the 1970s, the movement was fragmented into disputing factions. By 1980, it was estimated that around 30 Naxalite groups were active, with a combined membership of 30,000.

21) A Naxal or Naxalite is a member of any of the Communist guerrilla groups in India, mostly associated with the Communist Party of India (Maoist). The term Naxal derives from the name of the village Naxalbari in West Bengal, where the movement had its origin. Naxalites are considered far-left radical communists, supportive of Maoist political sentiment and ideology. Their origin can be traced to the split in 1967 of the Communist Party of India (Marxist), leading to the formation of the Communist Party of India (Marxist–Leninist). Initially the movement had its centre in West Bengal. In later years, it spread into less developed areas of rural southern and eastern India, such as Chhattisgarh, Odisha and Andhra Pradesh through the activities of underground groups like the Communist Party of India (Maoist).

22) রায়পুর: ভারতের ছত্রিশগড় রাজ্যের সুকমা জেলায় মাওবাদী গেরিলাদের হামলায় ১৪ পুলিশ নিহত হয়েছে। ছত্রিশ গড়ের মন্ত্রী রমন সিংয়ের ‘এ রাজ্য নকশাল মুক্ত হবে’ এ ঘোষণার একদিন পরই সোমবার দুপুরে এ হামলা চালানো হয়। – – – এর আগে ২০১০ সালের এপ্রিল মাসে তারমেতলায় ৭৬ পুলিশ সদস্যকে জবাই করে হত্যা করে মাওবাদীরা। এ হামলার পর সুকমার জেলার হামলাকে ভয়াবহ হামলা হিসেবে ধরা হচ্ছে।

23)

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s

%d bloggers like this: